বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪

| ৬ আষাঢ় ১৪৩১

Campus Bangla || ক্যাম্পাস বাংলা

পেনশন স্কিম বাতিল দাবিতে ফের কর্মবিরতিতে শিক্ষকরা

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৯:১৩, ৩ জুন ২০২৪

পেনশন স্কিম বাতিল দাবিতে ফের কর্মবিরতিতে শিক্ষকরা

সর্বজনীন পেনশন স্কিম বাতিল দাবিতে দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা কাল মঙ্গলবার ফের অর্ধদিবস কর্মবিরতি পালন করেছেন। দাবি আদায়ে পরবর্তী কর্মপ্রক্রিয়া নির্ধারণ করতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশন। এর আগে গত ২৮ মে দাবি আদায়ের লক্ষ্যে দেশের বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মবিরতী পালন করেন শিক্ষকরা। 

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকরা পেনশন স্কিমকে ‘বৈষম্যমূলক’ আখ্যা দিয়ে বলেছেন, সরকার অবিলম্বে এই স্কিম বাতিল না করলে আন্দোলনের বৃহত্তম কর্মসূচি ঘোষণা করবেন তারা।

শিক্ষকরা জানান, গত ১৩ মার্চ অর্থ মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়েছে, যেসব শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী চলতি বছরের ১ জুলাইয়ের পর যোগদান করবেন তাদের জন্য সর্বজনীন পেনশন স্কিমের ‘প্রত্যয় স্কিম’ বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। তাদের ক্ষেত্রে ওই প্রতিষ্ঠান বা সংস্থার জন্য বিদ্যমান অবসর সুবিধা সংক্রান্ত বিধিবিধান প্রযোজ্য হবে না।

শিক্ষকরা বলছেন, প্রত্যয় স্কিমে মূল বেতন থেকে ১০ শতাংশ অর্থ কেটে নেওয়া হবে, যেটা আগে কাটা হতো না। বর্তমানে পেনশনার ও নমিনি আজীবন পেনশনপ্রাপ্ত হন; কিন্তু নতুন এ স্কিমে পেনশনাররা ৭৫ বছর পর্যন্ত পেনশন পাবেন। বিদ্যমান পেনশনব্যবস্থায় ৫ শতাংশ হারে ইনক্রিমেন্ট পাওয়া যায়, সর্বজনীন পেনশন ব্যবস্থায় সেটিও সুস্পষ্ট করা হয়নি। দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষকদের চাকরির মেয়াদকাল ৬৫ থেকে ৬০ বছর করা হয়েছে। মাসিক চিকিৎসাভাতা, উৎসবভাতা, বৈশাখী ভাতাও নতুন প্রত্যয় স্কিমে প্রদান করা হবে না বলে জানা গেছে।

বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের সভাপতি অধ্যাপক মো. আখতারুল ইসলাম বলেন, পেনশন স্কিম বাতিল দাবিতে মঙ্গলবার সকল বিশ্ববিদ্যালয়ে সকাল ৮টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত শিক্ষকরা কর্মবিরতি পালন করেন। এরপর দুপুর ১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ফেডারেশনের পক্ষ থেকে প্রেস ব্রিফিং করা হয়।

এজেড