মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

| ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০

Campus Bangla || ক্যাম্পাস বাংলা

মেডিকেলে মুক্তিযোদ্ধা কোটা পূরণ না হলে সাধারন ভর্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৯:০৭, ২৫ ডিসেম্বর ২০২৩

মেডিকেলে মুক্তিযোদ্ধা কোটা পূরণ না হলে সাধারন ভর্তি

২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় জেলা কোটা বাতিল করা হয়েছে। মুক্তিযোদ্ধা কোটায় নির্ধারিত সময়ে আসন পূরণ করা না গেলে সেসব আসনে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ভর্তির সুযোগ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া সরকারি-বেসরকারি মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে ভর্তি থাকা দ্বিতীয়বার ভর্তিচ্ছুদের ১০ নম্বর কাটার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। 

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত এক সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (চিকিৎসা শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মো. জামাল এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, সভায় অধিকাংশের মতামতের ভিত্তিতে জেলা কোটা বাতিল করা হয়েছে। এছাড়া গতবছর মুক্তিযোদ্ধা কোটায় বেশ কিছু আসন ফাঁকা থেকে গেছে। এবার আমরা সেসব আসন কিভাবে পূরণ করা যায় সে বিষয়ে পর্যালোচনা করেছি। মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের সঙ্গেও পরামর্শ করেছি। ফাইনালি সিদ্ধান্ত হয়েছে মুক্তিযোদ্ধা কোটায় নির্ধারিত সময়ে আসন পূরণ করা না গেলে সেসব আসনে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ভর্তির সুযোগ দেওয়া হবে।

দ্বিতীয়বার ভর্তিচ্ছুদের বিষয়ে তিনি বলেন, অনেকেই মেডিকেলে ভর্তি থেকেও দ্বিতীয়বার পরীক্ষা দেয়। পরবর্তীতে ভালো কোথাও ভর্তির সুযোগ পেলে তাঁর পূর্বের আসনটি নষ্ট হয়ে যায়। এতে সরকারের অর্থ অপচয় হয়। আমরা এবার এ বিষয়ে কঠোরতার জন্য সরকারি-বেসরকারি মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে ভর্তি থাকা দ্বিতীয়বার ভর্তিচ্ছুদের ১৫ নম্বর কাটার পরামর্শ দিয়েছিলাম। পরে সবার পরার্শক্রমে ১০ নম্বর কাটার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষায় নিরুৎসাহিত করতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

তবে সরকারি-বেসরকারি মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে ভর্তি নেই এমন দ্বিতীয়বার ভর্তিচ্ছুদের জন্য পূর্বের মতো ৫ নম্বর কাটা যাবে বলেও জানান অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মো. জামাল।

জানা গেছে, মেডিকেলের মোট আসনের ২০ শতাংশ আসন বরাদ্দ থাকে জেলা কোটায় আবেদন করা শিক্ষার্থীদের জন্য। এই কোটা সবার জন্যই প্রযোজ্য। ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষে জেলা কোটায় প্রায় ৭৫০ জন শিক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ পেয়েছিলেন। গড়ে প্রতিটি জেলা থেকে প্রায় ১২ জন শিক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন। তবে ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষে এই সুযোগ পাচ্ছেন না শিক্ষার্থীরা।